Tuesday , September 27 2022

নেতাকর্মীদের মামলা প্রত্যাহারের আগে কোনো নির্বাচন নয়: ফখরুল

শ্রী প্রশান্ত কুমার সুএ ধর
নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ

বিএনপির প্রায় ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে যে মিথ্যা মামলা আছে, তা প্রত্যাহারের আগে কোনো নির্বাচন কমিশন গঠন ও নির্বাচন হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার (১১ আগষ্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগও তত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থার পক্ষে ছিলো। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেটাকে বাদ দিয়েছেন। শুধুমাত্র আজীবন আওয়ামী লীগের দলীয় সরকারের মাধ্যমে নির্বাচন অনুষ্ঠিত করার জন্য। যেই নির্বাচনে আগের রাতে ভোটকেন্দ্র দখল করা হবে।বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা স্পষ্টভাষায় বলতে চাই বাংলাদেশে আর সেরকম নির্বাচন হবে না। নির্বাচন কমিশন গঠন হবে ঠিক, যখন সত্যিকার অর্থে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠণের ব্যবস্থা করা হবে। সেই কমিশনের অধীনে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন হতে হবে। আর তার আগে অবশ্যই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। একই সাথে শুধুমাত্র রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে বন্দি রাখা রাজনৈতিক নেতা ও কর্মীদেরকে মুক্তি দিতে হবে। আর ৩৫ লাখ মানুষের বিরুদ্ধে যে মিথ্যা মামলা আছে তা প্রত্যাহার করতে হবে। তার আগে কোনো নির্বাচন হবে না।

ফখরুল বলেন, আজকে আমরা একটা কঠিন সময় অতিক্রম করছি। ১৯৭১ সালে স্বাধনীতা যুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমরা যে অধিকারগুলো অর্জন করেছিলাম, আজকে সেগুলোকে সম্পুর্ণভাবে কেড়ে নেয়া হয়েছ। তিনি বলেন, ১৯৯০ সালে একটি গণঅভ্যুর্থানের মধ্য দিয়ে যে গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে নিয়ে এসেছিলাম সেই গণতন্ত্রকে ধংশ করে দেয়া হয়েছে।নেই, মানুষ তার কোনো অধিকার পূরণ করতে পারছে না। এমনকি জণগন তাদের ভোটও দিতে পারছে না।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর হয়ে গেছে। দুর্ভাগ্য আমাদের, শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের যে ব্যবস্থা সেই ব্যবস্থাকে আমরা এখন পযন্ত সুনিশ্চিত করতে পারিনি। কার জন্য পারিনি? আওয়ামী লীগের জন্য পারিনি। কারণ এই সরকার চায় দেশে একটিমাত্র দল থাকবে, একটি মাত্র পরিবার থাকবে।

তিনি বলেন, তত্বাবধায়ক সরকারের মাধ্যমে এদেশের মানুষ একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনের ব্যবস্থা করেছিলো। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সংসদে সেটা পাশ করেছিলেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ ক্ষমতার আসার কিছুদিনের মধ্যেই সম্পূর্ণ জনপ্রিয়তা হারিয়েছে। ফলে তারা চিন্তা করেছে তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে আমরা কোনোদিন ক্ষমতায় যেতে পারবো না। তাই তারা তত্বাবধায়ক সরকারের বিধানটাকে এতরফাভাবে বাদ দিয়েছে। প্রতিটি রাজনৈতিক দল এমনকি আওয়ামী লীগও ১৯৯৬ সালে এর পক্ষে ছিলো।

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সরাজীবন মানুষের মুক্তির জন্য সংগ্রাম করেছেন। আজ তিনি গৃহবন্দি। এই মহান নেত্রী বাংলাদেশে নারী অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য যে অবদান রেখেছেন তা বাংলাদেশের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লিপিবদ্ধ থাকবে।

তিনি বলেন, এক সময় বাংলাদেশে, বিশেষ করে এদেশের গ্রামের সংস্কৃতি ছিলো আমরা মেয়েদের লেখাপড়া করাতে চাইতাম না। কম বয়সে মেয়েদের বিয়ে দিয়ে দেয়া হতো। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সেটার বিরুদ্ধে আইন করেছেন। তিনি সবচেয়ে বড় যে কাজটি করেছিলেন সেটি হলো, দশম শ্রেণী পযন্ত মেয়েদের বিনামূল্যে লোখাপড়ার ব্যবস্থা করা। তাদের জন্য বেগম খালেদা জিয়া বৃত্তি প্রদানের ব্যবস্থা করেছিলেন।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

Check Also

PicsArt 10 16 08.31.52 scaled

বাঘারপাড়ায় বিজয়া দশমী পূজার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা।

মেহেদী হাসান রিপন, বাঘারপাড়া উপজেলা প্রতিনিধি যশোরের বাঘারপাড়ায় বিজয়া দশমী পূজার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে …

13 comments

  1. Dormobad aieokom post dawar jonno

  2. দেশে শিক্ষাকে আরও বেশি গুরুত্ব দেয়া উচিত। নইলে সামনে আরও খারাপ পরিণতি হবেল

  3. এই সব পোস্ট করার জন্য ধন্যবাদ
    এই সব পোস্ট পরে বমরা অনেক কিছু শিখতে পারি

  4. আজকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর হয়ে গেছে। দুর্ভাগ্য আমাদের, শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের যে ব্যবস্থা সেই ব্যবস্থাকে আমরা এখন পযন্ত সুনিশ্চিত করতে পারিনি।

  5. লেখাটি পড়ে অনেক ভালো লাগলো ভাই

  6. বিএনপির প্রায় ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে যে মিথ্যা মামলা আছে, তা প্রত্যাহারের আগে কোনো নির্বাচন কমিশন গঠন ও নির্বাচন হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।Ami akothar satha akmot,,,

  7. বিএনপির প্রায় ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে যে মিথ্যা মামলা আছে, তা প্রত্যাহারের আগে কোনো নির্বাচন কমিশন গঠন ও নির্বাচন হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

  8. Srabanti Rani Paul

    খবরটি পড়ে অনেক ভাল লাগল।অনেক কিছু জানলাম।

  9. খুব সুন্দর একটা পোস্ট। অনেক ভালো লাগলো ধন্যবাদ।

  10. ‌‌Md. Mahadi Hasan

    মির্জা ফকরুল সাহেব, ঠিকই বলেছেন বিএনপি’র প্রায় 35 লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা আছে তা তুলে নেওয়া পর্যন্ত আমরা নির্বাচন চাই না।
    কেননা আমরা নিরপেক্ষ ভোট কেন্দ্র চাই। আর তা সৃষ্টি না হলে আমরা নির্বাচন চাই না।

  11. মোঃ জুলফিকার রহমান

    গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় কাজ করে যাচ্ছে বি এন পি

  12. Great post and awesome website

  13. তন্ময় মজুমদার

    এত সুন্দর সংবাদ পেশ করার জন্য আপনাদেরকে ধন্যবাদ আলোর পত্রিকা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.